বেঞ্জামিন ফ্র্যাংকলিন একবার একটা কথা বলেছেন, “টেল মি এন্ড আই ফরগেট! টিচ মি এন্ড আই রিমেম্বার! ইনভলভ মি এন্ড আই লার্ন!”

আমাদের অনেক সমস্যা রয়েছে, তাই না? প্রত্যেকের নিজের লাইফেই হাজার ধরনের হাজার রঙের সমস্যা রয়েছে। কিন্তু আমরা মানুষ। আমাদের বেড়ে উঠতে হবে। প্রত্যেক সেকেন্ডে নতুন আশা আমাদের টোকা দেয়। প্রত্যেক মূহুর্তে আমাদের মাঝে শেখার ইচ্ছা আর নতুন কিছু জানার ইচ্ছে নাড়া দেয়, তাই না?

কিন্তু!

হ্যা কিন্তু, যখন আমরা নিজেদেরকে নিজেদের গন্ডির মধ্যে আটকে রাখি, যখন আমরা আমাদের দুনিয়াটাকেই সবচেয়ে উপরে উঠিয়ে রাখি, যখন আমরা আমাদের জীবনকে অন্যদের থেকে মহৎ বলে ঘোষণা দিই – তখন আমরা বেড়ে উঠার কথা ভুলে যাই।

আমরা প্রতিনিয়ত হাজার ধরণের মানুষের সাথে মেলামেশা করি। হাজার রকমের মানুষকে চিনতে পারি। ছেলে মেয়ে, বয়সে ছোটো বড়, জ্ঞানী বোকা ইত্যাদি ইত্যাদি।

আমাদের একটা বিশেষ সমস্যা কি জানেন? আমরা নিজেদেরকে ভাবি সবচেয়ে বড় জ্ঞানী ব্যক্তি। সেটা ভাবাটাও ততটা সমস্যা নয়। কিন্তু যখন আমরা শেখার আশা ছেড়ে দিই, কেউ শেখাতে চাইলে সেটা গ্রহণ করি না, কেউ মহৎ একটা কাজের সাথে যুক্ত করতে চাইলে ফিরিয়ে দিই নাহয় পিঠ দেখিয়ে ফিরে চলে যাই, কেউ একসাথে ভালো কাজ করতে চাইলে সেটাকে পাত্তাই দিই না – ঠিক তখনই আমরা চাপা পড়ে যাই আমাদের বোকামির নিচে। আমরা যেটা একটাবার ভেবেও দেখি না।

আমার ফ্রেন্ডলিস্টে এমন অনেক আছেন যারা শিখতে চান, যারা জানতে চান, যারা একসাথে নতুন কিছু করতে চান, যারা দুরদর্শী – তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ, তাদের উপর প্রত্যেকেই খুশি আর সন্তুষ্ঠ।

বিশ্বাস করুন, আমিও ততটা জ্ঞানী নই। স্কুল কলেজে আমিও হাজারবার বুলি হয়েছি, যারা বুলি করেছে তাদের চেহারা কখনো ভুলবো না, তাদের হাতে মারতে পারি নি কোনোদিনই কিন্তু ভাতে মারার জ্ঞান অর্জন করেছি। ভালো করে পড়ুন, ‘অর্জন’ করেছি।

আমি হয়তো দুটো বা তিনটা বিষয়ে সাধারণের চেয়ে কিছুটা ভালো জানি। কিন্তু প্রত্যেকেই এমন কিছু বিষয় আছে যেগুলোতে আমার চেয়ে শতগুণ ভালো জানেন। অনেকেই আছেন, লক্ষ কোটি মানুষ আছেন। আমি সেটা পাবলিকলি স্বীকার করতে রাজি। কিন্তু আমার খুব খারাপ লাগে, যখন সেটা কিছু মানুষ স্বীকার করতে রাজি থাকে না।
নিজেকে খুলে না দিলে শিখবেন কীভাবে? শিখতে রাজি না থাকলে আপনার বয়স বাড়বে, আপনি বাড়বেন না!

ক্ষোভ থেকে লিখছি না। মন থেকে লিখছি তাদের উদ্দেশ্যে যারা শিখতে রাজি নন। কেন? একটা জিনিস পারি না সেটা স্বীকার করতে রাজি নন কেন?

না পারলে আর স্বীকার করে ফেললে, আপনি ছোট হয়ে যাচ্ছেন? আসলেই কি ছোট হয়ে যাচ্ছেন?!

দূ;খিত যদি কথাগুলোতে কারো খারাপ লাগে। যদিও উচিত কথায় গা জ্বলার স্বভাবটা অনেকেরই আছে!!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *